Home / অপরাধ জগৎ / গুঞ্জন থাকলেও গ্রেপ্তার হননি আরিফ

গুঞ্জন থাকলেও গ্রেপ্তার হননি আরিফ

সিলেট: সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ্ এএমএস কিবরিয়া হত্যা মামলায় চার্জশিটভুক্ত আসামী সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র ও বিএনপি নেতা আরিফুল হক চৌধুরী মঙ্গলবার সকাল থেকেই শহরে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে। দিনভর সবার দৃষ্টি ছিল টিভি ও অনলাইন নিউজ পোর্টালগুলোর দিকে। কেউ কেউ গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে ফোন দিয়েও বিষয়টি জানতে চেয়েছেন।

তবে আরিফ গ্রেপ্তারের গুঞ্জন চারদিকে ছড়িয়ে পড়লেও পুলিশ তাকে বুধবার সকাল ১১টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গ্রেপ্তার করেনি। আদালত আরিফের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আদেশ দিলেও এখনো পর্যন্ত কোন কাগজপত্র সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে পৌঁছেনি।

এ ব্যাপারে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (মিডিয়া) রহমত উল্লাহ বলেন, ‘আদালত আরিফের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আদেশ দিয়েছে তা আমরা গণমাধ্যমে দেখেছি। তবে তাকে গ্রেপ্তার সংক্রান্ত কোন কাগজপত্র এখনো আমাদের কাছে আসেনি। আসামাত্র পুলিশ অভিযান শুরু করবে।’

গ্রেপ্তার ছাড়াও আরিফুল হক চৌধুরী মঙ্গলবার আত্মসমর্পন করবেন এমন গুঞ্জনও উঠেছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আরিফ আত্মসমর্পণ করেননি। কবে করবেন এ ব্যাপারে এখনো কোন তথ্য জানা যায়নি।

গত ১৩ নভেম্বর কিবরিয়া হত্যা মামলার চার্জশিটে আরিফের নাম অন্তর্ভূক্ত হওয়ার পর থেকে তিনি আত্মগোপনে রয়েছেন। তবে তার ঘনিষ্ঠ সূত্রগুলো আইনি লড়াই চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করে যাচ্ছেন। আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন বলেও গণমাধ্যমকে জানাচ্ছেন ঘনিষ্ঠজনরা।

এ ব্যাপারে জানার জন্য বুধবার সকাল ১১টার দিকে মেয়র আরিফের একান্ত আস্থাভাজন ব্যক্তি, সিলেট ল’ কলেজ ছাত্রদলের সাবেক ভিপি, কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা মাহবুবুল হক চৌধুরীর সঙ্গে যোগাগোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘শিগগির মেয়র আরিফ আদালত আত্মসমর্পন করবেন। তবে কবে করবেন তা এখনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। ’

প্রসঙ্গত, গত রোববার হবিগঞ্জের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রশীদ আহমদ মিলনের আদালতে কিবরিয়া হত্যা মামলার ৩য় দফা সম্পূরক চার্জশিট গৃহীত হয়। এ সময় সিলেট ও হবিগঞ্জের মেয়রসহ মামলার পলাতক আসামীদের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেয়া হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিলেট সিআইডি জোনের সিনিয়র সহকারি পুলিশ সুপার মেহেরুন নেছা পারুল গত ৩ ডিসেম্বর ২য় দফা সম্পূরক চার্জশিট দাখিল করেন। এতে আরিফুল হক চৌধুরী ও বিএনপি চেয়ারপারসনের সাবেক রাজনৈতিক সচিব হারিছ চৌধুরীসহ ১১ জনকে নতুন করে আসামী করে মোট ৩৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল এবং এদের মধ্য থেকে ৩ জনকে চার্জশিট থেকে বাদ দেয়ার আবেদন জানানো হয়।

Leave a Reply