Home / বাংলাদেশ / ব্যাপক অনিয়ম, সহিংসতা ও কেন্দ্র দখল-বর্জনে শেষ হলো নির্বাচন

ব্যাপক অনিয়ম, সহিংসতা ও কেন্দ্র দখল-বর্জনে শেষ হলো নির্বাচন

upojila nirbachanব্যাপক অনিয়ম, জাল ভোট, কেন্দ্র দখল, নির্বাচন বর্জন ও স্থগিতের মধ্যে দিয়ে শেষ হল দ্বিতীয় দফায় ১১৫ উপজেলার নির্বাচন। বৃহস্পতিবার সকাল আটটায় নির্বাচন শুরু হওয়ার পর ঘন্টাখানের মধ্যে দেশের ১১৫ উপজেলার শত শত কেন্দ্র দখল করে নেয় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীদের নেতাকর্মীরা। বিভিন্ন কেন্দ্রে প্রশাসনের উপস্থিতিতেই সরকার দলীয়রা ব্যাপক জালভোট দিয়েছে বলে অভিযোগ এসেছে। কারচুপি এবং অনিয়মের অভিযোগ এনে বেশ কয়েকটি উপজেলায় নির্বাচন বর্জন করেছে ১৯ দল সমর্থিত প্রার্থীরা। কয়েকটি কেন্দ্রে উভয়পক্ষের গোলাগুলির কারণে ভোট স্থাগিত করেছে স্থানীয় প্রশাসন। প্রতিবাদে হরতাল ঘোষণা করেছে ১৯ দলীয় জোট সমর্থিত প্রার্থীরা।

জানা যায়, বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাচনে কারচুপি, জাল ভোট, কেন্দ্র দখল এবং হামলার অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা।জেলা দক্ষিণ বিএনপি’র সভাপতি এবায়দুল হক চাঁন এক সংবাদ সম্মেলনে নির্বাচন বর্জন এবং আগামী রোববার হরতাল পালনের ঘোষণা দেয়।একই উপজেলার কর্নকাঠী উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে জাল ভোটে সহায়তা করায় সহকারি প্রিসাইডিং অফিসার মো. সাজ্জাদ হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

আমাদের ভোলা প্রতিনিধি জানায়, ভোলা চরফ্যাশন উপজেলার আহমদপুর, আবু বকরপুর, নীলকমল, জাহানপুর, আছলামপুরের আবু গঞ্জ, রসুলপুর, হাজারীগঞ্জ, চর কলমী, নজরুল নগর ভোট কেন্দ্রসহ ১১০টি কেন্দ্রের মধ্যে প্রায় ৭৫টি কেন্দ্র দখল করে নেয় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীর নেতাকর্মীরা। এ সময় তারা প্রশাসনের উপস্থিতিতে ব্যাপক জাল ভোট দেয়।

নির্বাচনে জাল ভোট, কেন্দ্র দখল, কারচুপিসহ অনিয়মের অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে ১৯ দল সমর্থিত প্রার্থী মোতাহের হোসেন আলমগীর মালতিয়া। সংবাদ সম্বেলনে তিনি বলেন, প্রশাসনের উপস্থিতে আ’লীগ কর্মীরা কেন্দ্র দখল করে জাল ভোট দিলেও তারা কোন ব্যবস্থা নেয়নি। নির্বাচন বর্জন করে এ সময় তারা আগামী শনিবার বিক্ষোভ এবং রোববার হরতাল ঘোষণা করে।

ফেনী প্রতিবেদক জানায়, ফেনীর পরশুরামে নির্বাচন বর্জনের ঘোষনা দিয়েছে ১৯ দল সমর্থিত প্রার্থীর আবু তালেব। বৃহস্পতিবার বেলা ১টায় পৌরসভার নিজ বাসায় এক সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যেমে তিনি এই ঘোষণা দেন।

সংবাদ সম্মেলনে আবু তালেব সরকার সমর্থিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে কেন্দ্র দখল, হামলা এবং জাল ভোটের অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দেন।

আমাদের নোয়াখালী প্রতিনিধি ইমন চৌধুরী জানায়, নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে পুলিশের গুলিতে সাদ্দাম হোসেন নামের এক যুবক নিহত হয়েছে। ১৯ দল সমর্থিত প্রার্থীর সমর্থকরা দাবি করেন, এই উপজেলায় সরকার দলীয় কর্মীরা ব্যাপক জাল ভোট, কেন্দ্র দখল এবং কারচুপির করেছে।

আমাদের লালমনিরহাট প্রতিবেদক জানায়, লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাচনে ১৫টি ভোটকেন্দ্র থেকে জামায়াত সমর্থিত প্রার্থীর এজেন্টদের আওয়ামী লীগ সমর্থকরা বের করে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার সকাল নয়টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ করেছে জামায়াত সমর্থিত প্রার্থীর সমর্থকরা।

জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক (অতিরিক্ত) আবু নুর মোহাম্মদ শামসুজ্জামান বিষয়টি শুনেছেন বলে জানিয়েছেন।

এছাড়া, মেহেরপুরের গাংনী, কক্সবাজারের চকোরিয়া, ফেনীর পরশুরাম ও পশ্চিম সুনাইমুড়ি, মুন্সিগঞ্জ সদর, কেরানিগঞ্জ, গোপালগঞ্জের বনগ্রাম, কুষ্টিয়ার কুমারখালিসহ আরো অনেক স্থানে সরকার সমর্থিত প্রার্থীর নেতাকর্মীরা জোরপূর্বক কেন্দ্রে প্রবেশ করে জাল ভোট, কেন্দ্র দখল এবং কারচুরি করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কেন্দ্র দখল, জাল ভোট, কারচুপি, এজেন্টদের বের করে দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগে নোয়াখালী সদর উপজেলার ভোটগ্রহণ স্থগিত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে এক জরুরি বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

দ্বিতীয় দফা উপজেলা নির্বাচনে বোমা হামলা, ককটেল বিস্ফোরণ, ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া, হামলার অভিযোগও রয়েছে।

———————————————————————————————

ফেনী আলিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থীর (দোয়াত কলমের) পক্ষে জাল ভোট দিতে দেখা যাচ্ছে…

http://youtu.be/xh8J0N7Iato

 

Leave a Reply