Home / রাজনীতি / রবিবার দলমত নির্বিশেষে রাজপথে নেমে আসুন: হেফাজত

রবিবার দলমত নির্বিশেষে রাজপথে নেমে আসুন: হেফাজত

hefjot41বিরোধী জোটের ‘মার্চ ফর ডেমোক্রেসি’র প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে দেশের তৌহিদী জনতাকে আগামী রবিবার দেশ ও ঈমান রক্ষার সংগ্রামে ঢাকা অভিমুখে যাত্রা করার আহ্বান জানিয়েছে হেফাজতে ইসলাম।

শুক্রবার সন্ধ্যায় এক যুক্ত বিবৃতিতে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় নেতারা এ আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে বলা হয়, বর্তমান জালিম ও অবৈধ সরকার প্রতিদিন নিরীহ মানুষদেরকে নির্বিচারে হত্যা করছে, বাড়িঘর বুলডোজার দিয়ে গুঁড়িয়ে দিচ্ছে। হামলা, মামলা ও দমন-পীড়ন চালিয়ে দেশকে এক ত্রাসের রাজত্বে পরিণত করেছে।

হেফাজত নেতারা বলেন, এ সরকারের জুলুম আইয়্যামে জাহিলিয়্যাকেও হার মানিয়েছে। স্বাধীনতার পর থেকে দেশ এতো ভয়াবহ সংকটের মুখে আর পড়েনি। এই জালিমশাহীর পতনের আন্দোলন সংগ্রামে শরিক হওয়া প্রতিটি মানুষের অপরিহার্য কর্তব্য।

তারা বলেন, এই আন্দোলনে এখন দলীয় ভেদাভেদের কোনো সুযোগ নেই। এখন ধর্ম-বর্ণ ও শ্রেণী-পেশার সকল মানুষকে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষা এবং নিরাপত্তা ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে শামিল হতে হবে। অন্যথায় ভারতীয় আধিপত্যবাদের ক্রীড়নক এই সরকার দেশকে ধ্বংসের অতলে নিয়ে যাবে।

হেফাজত নেতারা বলেন, এখন থেকেই যে যেভাবে পারেন, ঢাকা অভিমুখে যাত্রা শুরু করুন। রবিববার ইসলাম বিদ্বেষী এই জালিম সরকার অন্যায়ভাবে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করলে দেশের প্রতিটি জেলা, উপজেলা এবং গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার মোড়ে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে অবস্থান নিয়ে জালিম শাহীর পতন ঘণ্টা বাজাতে হবে।

তারা বলেন, অবৈধ এই সরকার সম্পূর্ণ অগণতান্ত্রিক ও অন্যায়ভাবে বাক-স্বাধীনতাসহ জনগণের মৌলিক অধিকারকে হরণ করছে। জোর-জুলুম ও অন্যায়ভাবে ক্ষমতা কুক্ষিগত রাখার চেষ্টাসহ নাগরিকদেরকে কোনো প্রতিবাদ করতে দিচ্ছে না।

‘একদিকে সরকার ইসলাম বিদ্বেষী নাস্তিক্যবাদিদেরকে সার্বিক সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে, অন্যদিকে উলামা-মাশায়েখদেরকে ওয়াজ-মাহফিল, তাফসির মাহফিল ও ইসলামী সম্মেলন করতে দিচ্ছে না’ অভিযোগ হেফাজত নেতাদের।

তারা বলেন, একটি বৃহৎ মুসলিম অধ্যুষিত দেশের নাগরিকরা পবিত্র কুরআন-হাদীস ও ইসলামের বাণী প্রচার করতে সরকারিভাবে বাধাগ্রস্ত হবেন, এটা কল্পনাও করা যায় না।

বিবৃতিতে বলা হয়, আজ ইসলাম বিদ্বেষী নাস্তিক্যবাদী কথিত গণজাগরণ মঞ্চের রাস্তা দখল ও সমাবেশ করতে অনুমতির প্রয়োজন হয় না, অথচ ৯০ ভাগ মুসলমানের দেশ হওয়া সত্ত্বেও তৌহিদী জনতাকে ওয়াজ-মাহফিল ও ইসলামী সম্মেলন করতে অনুমতি দেয়া হয় না।

‘মূলতঃ ধর্মনিরপেক্ষ নীতির আড়ালে বর্তমান সরকার এই দেশ থেকে ইসলাম ও ঈমানি চেতনাকে মুছে দিতে চাচ্ছে। সুতরাং এখন আর বসে থাকার সুযোগ নেই। অন্যথায় এদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বের পাশাপাশি ইসলামকেও তারা ধ্বংস করে ছাড়বে’ দাবি হেফাজত নেতাদের।

বিবৃতিদাতারা হলেন, হেফাজতের সিনিয়র নায়েবে আমির আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী, নায়েবে আমির আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী, মাওলানা আহমদুল্লাহ আশরাফ, মাওলানা আবদুল হামিদ পীর সাহেব মধুপুর, মাওলানা আবদুল মুমিন খলীফায়ে মাদানী, মাওলানা হাফেজ তাজুল ইসলাম, মুফতি আব্দুর রহমান, মুফতি ইজহারুল ইসলাম চৌধুরী প্রমুখ।

Leave a Reply